পারফিউমের ঘ্রাণ দীর্ঘস্থায়ী করার উপায়

ways-make-perfume-scent-last-longer




অনেক দাম দিয়ে কেনার পরো ঘ্রাণ দীর্ঘস্থায়ী হচ্ছে না, এই নিয়ে মনে মনে অনেক সময় ক্ষোভ জন্মে যায়। অনেকেই এই অভিযোগের ভিত্তিতে ঘনঘন ব্র্যান্ড পরিবর্তন করতে থাকেন, তাতেও লাভের অংক একদম কম।অনেকেই সুগন্ধ দীর্ঘস্থায়ী করতে প্রায় সুগন্ধি দিয়ে স্নান করে নেন, আসলে এটাও কোন সমাধানের কথা নয়। 


সত্যি বলতে পারফিউম ব্যবহার করলে ব্যক্তির ব্যক্তিত্ব বৃদ্ধি পায়। অনেক মানুষের মাঝে নিজেকে ভিন্ন ইমেজে তুলে ধরা যায়। বর্তমান সময়ে সব বয়সের মানুষের কাছে দৈনন্দিন জীবনে পারফিউম বেশ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। তাই আসুন জেনে নেওয়া যাক, আপনার পছন্দের সুগন্ধ দীর্ঘস্থায়ী করতে কি কৌশল অবলম্বন করা যায়। 



 সুগন্ধির গোপন রহস্য 
১. উড, অ্যাম্বার, লেদার, মাস্কের মতো বেসনোট থাকলে পারফিউম স্থায়ী হয় বেশি। যদি হালকা ফ্লোরাল বা ফ্রুটি সুগন্ধ পছন্দ হয়, তা হলে ভারী বেসনোটের পারফিউম প্রথমে লাগিয়ে তার উপর হালকা সুগন্ধ লাগাতে পারেন। 
২. অডি টয়লেটের চেয়ে অডি পারফিউম সবসময় বেশি ভালো। কারণ অডি পারফিউম মূলত অয়েল-বেসড ফর্মুলা হওয়ার কারণে গন্ধ অনেক বেশি সময় ধরে থাকে।
৩. পারফিউম রাখতে হবে যত্ন করে। বেশি আলো আসে বা গরম থাকে এমন জায়গায় পারফিউমের বোতল রাখা যাবে না। শীতল ও অন্ধকার জায়গাই পারফিউমের জন্য সবচেয়ে আদর্শের। 
৪. নিজেই সুগন্ধ তৈরি করে নিতে পারেন। এরজন্য পছন্দের দুটো বা তিনটে পারফিউম একসাথে মেখে তৈরি করে নিন নিজের স্বতন্ত্র সুগন্ধি। বুঝতেই পারবে না কেউ কোন পারফিউম দিয়েছেন।


 পারফিউমের ঘ্রাণ দীর্ঘস্থায়ী করার উপায় 
রহস্যময় পারফিউমের জগতে ডুবে যাওয়া প্রেমিকের অভাব নেই। একটু সুগন্ধি গায়ে মেখে ঘুরতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু এই জগতে সবার পছন্দ কখনোই এক হয়না। এই জগতে সবার পছন্দ আলাদা আলাদা। সবাই নিজের মন মতো করে সুগন্ধি লাগাতে পছন্দ করেন। 

কিন্তু দাম এবং ব্র্যান্ডের তারতম্যের কারণে এটি দীর্ঘস্থায়ী হয়ে থাকে ভিন্ন রুপে। অনেকেই টাকা বাঁচাতে গিয়ে তূলনা মুলক কম মানের পারফিউম নিয়ে আসেন কিন্তু বাসায় আনার পরেই শুরু হয় বিপত্তি। তো চলুন জেনে নিই কিভাবে আপনার সুগন্ধি দীর্ঘস্থায়ী করবেন। 


১. গোসলের পরপরই পারফিউম লাগাতে হবে 
কুসুম কুসুম গরম পানিতে গোসল করা শরীরের লক্ষে ভীষণ ভালো, কারণ গরম পানির ভাপ শরীরের লোমের ছিদ্রগুলোকে খুলে দেয়। গোসল করে বেরোনোর ঠিক পরেই পারফিউম লাগালে ত্বক পারফিউম ধরে রাখতে পারে। গোসলের পর কোনও একটা সুগন্ধীহীন ময়েশ্চারাইজ়ার লাগিয়ে তারপর পারফিউম স্প্রে করুন।


২. শরীরের নিচের পালস পয়েন্টগুলোতে লাগাতে হবে 
অনেকেই শুধু শরীরের উপরের দিকে পারফিউম লাগান। কিন্তু শরীরের নিচের দিকের অংশে সুগন্ধী স্প্রে করলে স্থায়িত্ব অনেক বেশি হয় কারণ নিচের পালস পয়েন্টগুলো থেকে গন্ধটা ধীরে ধীরে উপরদিকে উঠতে উঠতে আপনাকে ঘিরে ফেলে, আপনি সুবাসিত থাকবেন অনেক বেশি সময় ধরে। 

মুলত যে অঙ্গগুলোতে স্প্রে করলে টেকে বেশি সেই অঙ্গগুলোতেই স্প্রে করা উত্তম অংশ যেমন, কানের পিছনে, বুকের খাঁজে, পেটে, হাঁটুর পিছনে, এমনকী গোড়ালিতেও পারফিউম লাগানো যায়। তাই গতানুগতিক তাড়াহুড়ো করে শরীরের উপরিভাগে স্প্রে করা বন্ধ করুন। 


৩. পারফিউমের বোতল ঝাঁকানো যাবে না 
অনেক সময়ই আমরা অভ্যেসবশত ক্রিম বা ময়েশ্চারাইজ়ারের বোতল ঝাঁকিয়ে নিই। কিন্তু এ কাজটা পারফিউমের সঙ্গে করবেন না। ঝাঁকালে পারফিউমের বোতলে বাতাস ঢুকে গন্ধ ফিকে হয়ে যেতে পারে। তখন শরীরের যত‌ই লাগাবেন, সুগন্ধি কিছুতেই টিকবে না। 



No comments

Powered by Blogger.